rss

সেহরি ও ইফতার | রমজান-

শিরোনাম
বাংলাদেশের পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে ফ্রান্স, বিৃবতিতে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র <> 'অধিকার' সম্পাদক আদিলুর রহমান খান ও পরিচালক নাসির উদ্দিন এলানের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন <> অবরোধকারীদের ছোড়া পেট্রল বোমায় দগ্ধ বীমা কর্মকর্তা শাহীনা আক্তার (৩৮) ও ফল ব্যবাসায়ী মো. ফরিদ (৫০) মারা গেছেন <> সংখ্যালঘুদের ওপর বারবার হামলা হলে তার পরিণাম হবে আত্মঘাতী, মন্তব্য যোগাযোগমন্ত্রীর <> ভারতের মহারাষ্ট্রে চলন্ত ট্রেনে আগুন লেগে এক নারীসহ অন্তত ৯ জন নিহত
প্রিন্ট সংস্করণ, প্রকাশ : ০৯ জানুয়ারি ২০১৪অ-অ+
printer
গাইবান্ধায় ভাংচুরের ঘটনায় মামলা

কোনোদিন এংকা উৎপাত দেকোম নাই

উজ্জ্বল চক্রবর্তী, গাইবান্ধা
এখনও আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন সদর উপজেলার কুপতলা ইউনিয়নের বেড়াডাঙ্গা বাজার ও সংলগ্ন সংখ্যালঘু সল্ফপ্রদায়ের লোকেরা। গত সোমবার ওই এলাকায় হিন্দুদের ঘরবাড়িতে বিএনপি-জামায়াত সন্ত্রাসীদের হামলার পর মঙ্গলবার রাতে এলাকার মুরবি্বরা একত্রে বৈঠক করেন। তারা এ ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড যাতে আর না ঘটে, সে বিষয়ে ঐকমত্য পোষণ করেন। এলাকায় পালা করে পাহারা দেওয়া শুরু করেছেন তারা। তারপরও আতঙ্ক কাটেনি ওই এলাকার সংখ্যালঘু পরিবারগুলোর। জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি রণজিৎ বকসী সূর্য জানান, নির্বাচনের পর গত সোমবার রাতে দুর্বৃত্তরা হামলা চালায় সদর উপজেলার কুপতলা ইউনিয়নের বেড়াডাঙ্গা গ্রামে। সেখানে সংখ্যালঘু পরিবারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করে তারা। নির্বাচনের আগের দিন থেকেই আতঙ্কে রয়েছে জেলার ৫ উপজেলার অর্ধলক্ষাধিক মানুষ। তিনি বলেন, সুন্দরগঞ্জ উপজেলার শোভাগঞ্জ, বেলকা, মীরগঞ্জ, ছাইতানতলা, শিববাড়ী, বামনডাঙ্গা এলাকাসহ অন্য বেশকিছু এলাকার হিন্দু সল্ফপ্রদায়ের লোকজন আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে। বামনডাঙ্গার পূজা উদযাপন পরিষদের নেতা সংগ্রাম সিংহ বলেন, 'হিন্দু-মুসলিম নির্বিশেষে সবাই জানমাল রক্ষায় একযোগে সজাগ রয়েছি।' পালা করে এলাকায় দিন-রাত পাহারা দেওয়ার কথাও জানান তিনি। এদিকে বুধবার সকালে সরেজমিন এলাকায় গেলে দেখা যায়, কেঁদে কেঁদে বিলাপ করছেন আহত ননী গোপাল কর্মকারের স্ত্রী সুবরণ কর্মকার। তিনি বলেন, তার স্বামী-ছেলেকে পেটাল সন্ত্রাসীরা। ভেঙে তছনছ করল ঘরবাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। বেড়াডাঙ্গা গ্রামের ষাটোর্ধ্ব রাধা সুন্দর বর্মণ বলেন, 'কোনোদিন এংকা (এরকম) উৎপাত দেকোম (দেখি) নাই। ঘরদুয়ার সোগ ধ্বংস করি দিচে। " বয়োবৃদ্ধ বাহার উদ্দিন বলেন, 'এলাকার মানসের মদ্যে দীগ্য (দীর্ঘ) দিনের সল্ফপ্রীতি নষ্ট করি দিচে সন্ত্রাসী কয়েকটা চেংরা (ছেলে)। এংকা ককনোই ঘটে নাই।' সাবেক ইউপি সদস্য পুষ্পাঞ্জলী বর্মণ বলেন, এ ঘটনায় বেড়াডাঙ্গাসহ রামপ্রসাদ, কাটিসোলা এলাকার ৩৬০ হিন্দু পরিবারের মধ্যে এখনও আতঙ্ক বিরাজ করছে। গত সোমবার রাতে সন্ত্রাসীরা ননী গোপাল কর্মকারের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও পরিবারের লোকজনকে মারপিট করে। এ সময় বেড়াডাঙ্গা বাজারে সংখ্যালঘুদের ৫টিসহ ১৩টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভাংচুর চালানো হয়। এলাকার নরেশ চন্দ্র কর্মকার ও ওই পরিবারের নারীদের সঙ্গে অশালীন আচরণ করে সন্ত্রাসী ক্যাডাররা। প্রতিবাদ করলে ননী গোপাল কর্মকার ও নরেশ চন্দ্র কর্মকারসহ ৫ ব্যক্তি হামলাকারীদের মারপিটে আহত হন। সদর থানার ওসি গোপাল চন্দ্র চক্রবর্তী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ঘটনায় ডা. লিটনসহ ৭ জনের নাম উলেল্গখ করে অজ্ঞাত ১০-১২ জনকে আসামি করে একটি মামলা হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে , সংসদ নির্বাচনে ভোট দেওয়ার কারণে গাইবান্ধা সদর, সুন্দরগঞ্জ, সাদুল্যাপুর, পলাশবাড়ী ও গোবিন্দগঞ্জসহ বিভিন্ন এলাকায় সংখ্যালঘু পরিবারগুলোকে এখনও অব্যাহতভাবে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। সুন্দরগঞ্জের আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন জানান, শুধু তাই নয়, স্থগিত হওয়া অনেক ভোটকেন্দ্রে ভোট দিতে না যাওয়ার জন্য সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নারী-পুরুষকে হুমকি দিচ্ছে জামায়াত-শিবিরের কর্মী-সমর্থকরা। তারাপুর ইউনিয়নের এক সংখ্যালঘু ব্যবসায়ী জানান, রাতে নির্বাচনবিরোধীরা ফিরে এসে নানাভাবে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে।
মন্তব্য
সর্বশেষ ১০ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved