rss

সেহরি ও ইফতার | রমজান-

শিরোনাম
বাংলাদেশের পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে ফ্রান্স, বিৃবতিতে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র <> 'অধিকার' সম্পাদক আদিলুর রহমান খান ও পরিচালক নাসির উদ্দিন এলানের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন <> অবরোধকারীদের ছোড়া পেট্রল বোমায় দগ্ধ বীমা কর্মকর্তা শাহীনা আক্তার (৩৮) ও ফল ব্যবাসায়ী মো. ফরিদ (৫০) মারা গেছেন <> সংখ্যালঘুদের ওপর বারবার হামলা হলে তার পরিণাম হবে আত্মঘাতী, মন্তব্য যোগাযোগমন্ত্রীর <> ভারতের মহারাষ্ট্রে চলন্ত ট্রেনে আগুন লেগে এক নারীসহ অন্তত ৯ জন নিহত
প্রকাশ : ০৮ জানুয়ারি ২০১৪, ০১:৫৯:১১ | আপডেট : ০৮ জানুয়ারি ২০১৪, ১৪:২৯:৩৯অ-অ+
printer

জামায়াতের সঙ্গ সহজেই ছাড়বে না বিএনপি

বিশেষ প্রতিনিধি

দেশি-বিদেশি নানামুখী চাপের মধ্যেও 'সহজেই' জামায়াতে ইসলামীর সঙ্গ ছাড়বে না বিএনপি। ক্ষমতায় যেতে জামায়াতের 'শক্তি' কাজে লাগিয়ে চাপের মুখে নির্দলীয় সরকারের দাবি আদায় এবং ভোটের রাজনীতির 'মূল লক্ষ্য' নিয়েই সরকারবিরোধী আন্দোলনের কৌশলেই অটল থাকবে দলটি। দলের হাইকমান্ড মনে করে, জামায়াত নিষিদ্ধ না হওয়া পর্যন্ত তাদের সঙ্গে চলা দোষের কিছু নয় এবং বিতর্কের কিছু নেই। তবে দলের একটি অংশ মনে করে, বিএনপি জামায়াতের গ্রাসে আপন অন্তর্নিহিত শক্তি সাধারণ মানুষের সমর্থন হারিয়ে ফেলছে। তাই জামায়াতের সঙ্গ ত্যাগ করা উচিত বলে মনে করেন তারা। জামায়াতই এখন বিএনপির জন্য বড় 'বোঝা'_ জনান্তিকে এ ধরনের মন্তব্য করেন কেউ কেউ। জামায়াতের রক্তক্ষয়ী সহিংসতার দায় নিতে হচ্ছে প্রধান বিরোধী দলকে। দেশে ও বিদেশে বিএনপির প্রতি একটি 'নেতিবাচক' মনোভাব তৈরি হচ্ছে।জামায়াতের সঙ্গ সহজেই ছাড়বে না বিএনপি

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোটের বর্জনের মুখে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরদিন সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়াকে সহিংসতা ও জামায়াতের সঙ্গ ছেড়ে আলোচনায় আসার আহ্বান জানান। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় সেদিন রাতে বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, বিএনপি তাদের রাজনীতির বিষয়ে স্বাধীনভাবে সিদ্ধান্ত নেবে এবং কারও দ্বারা নির্দেশিত হবে না। সরকারকেই আলোচনার পরিবেশ তৈরি করতে হবে। একই সঙ্গে তিনি এও বলেন, আওয়ামী লীগই একসময় জামায়াতের সঙ্গে জোটবদ্ধ হয়ে আন্দোলন করেছে।বিএনপি হাইকমান্ড মনে করে, দেশের জনগণ বর্তমানে দুটি ধারায় বিভক্ত হয়ে গেছে। একটি ধারার নেতৃত্বে দিচ্ছে আওয়ামী লীগ। আরেকটি ধারার নেতৃত্বে রয়েছে বিএনপি। মূলত আগামীতে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটকে রাজপথ ও ভোটের রাজনীতিতে দুর্বল করার 'কৌশল' নিয়েছে আওয়ামী লীগ।

বিএনপির নীতিনির্ধারক একাধিক নেতা জানান, যে কোনো মূল্যে জামায়াতে ইসলামীকে 'পাশে রেখে' দশম সংসদ নির্বাচন বাতিল, সরকারের পদত্যাগ এবং নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত রাখবেন তারা। যতই অত্যাচার-নির্যাতন হোক, দাবি আদায়ে অব্যাহত কঠোর আন্দোলন ছাড়া তাদের সামনে আর কোনো পথ খোলা নেই। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে যা ঘটার ঘটবে।বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লে. জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান সমকালকে বলেন, একতরফা নির্বাচন বাতিল করে নির্দলীয় সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু করতে তারা আন্দোলন চালিয়ে যাবেন। এমনকি দাবি আদায় করতে যে ধরনের কঠোর কর্মসূচি দেওয়া প্রয়োজন তা দেবেন। তিনি বলেন, বিএনপিও যুদ্ধাপরাধের বিচার চায়। তবে তা হতে হবে স্বচ্ছতা ও আন্তর্জাতিক মানসম্মতভাবে। যুদ্ধাপরাধীদের মুক্তির দাবিতে জামায়াত তাদের মতো করে পৃথক কর্মসূচি পালন করবে।

সূত্র জানায়, বিএনপির শীর্ষ নেতাদের গ্রেফতার ও অনেকে আত্মগোপনে চলে যাওয়ায় রাজপথে নেতাকর্মীরা কেউ নামছেন না। এ পরিস্থিতিতে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরাই ঝুঁকি নিয়ে মাঠে আছেন। জামায়াত-শিবিরের ঝটিকা মিছিল, ককটেল ও পেট্রোল বোমা বিস্ফোরণ এবং ভাংচুর ও অগি্নসংযোগের ঘটনায় হরতাল-অবরোধ কর্মসূচি সফল করতে ভূমিকা রাখছে। বিএনপি জামায়াতের শক্তি ও নির্দিষ্ট ভোটব্যাংক কাজে লাগাতে একসঙ্গে আন্দোলন ও নির্বাচনে লড়তে চায়। এসব হিসাব-নিকাশ কষেই জামায়াতের সঙ্গ ছাড়তে রাজি নয় বিএনপি হাইকমান্ড।

মন্তব্য
সর্বশেষ ১০ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
এই পাতার আরো খবর
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved